আবহাওয়া মহানগর রাজ্য

ঘূর্ণিঝড় পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে আগামীকাল রাজ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী , আকাশপথে মুখ্যমন্ত্রীর সাথে বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন

Bangla 24×7 Desk : অকল্পনীয় , অপূরণীয় ক্ষতি l ঘূর্ণিঝড় আমফানের দাপটে গোটা দক্ষিণবঙ্গ সহ সারা রাজ্য ছিন্নভিন্ন হয়ে গিয়েছে l এই ক্ষতির মূল্যের পরিমাণ বিচার করলে তা হাজার ছেড়ে লক্ষ – কোটিতে পৌঁছে যেতে পারে l

জানা গেছে , দক্ষিণবঙ্গের জেলা গুলির মধ্যে উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগণা , কলকাতা , হুগলী সহ পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় আমফান তার ধ্বংসলীলা চালিয়েছে l পূর্ব মেদিনীপুর জেলার দীঘা , তাজপুর,শঙ্করপুর মন্দারমণির মত এলাকা ধ্বংসস্তূপে পরিণত l

এমন অবস্থায় ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে আগামীকাল রাজ্যে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় যাবেন প্রধানমন্ত্রী। আগামীকাল আকাশপথে মুখ্যমন্ত্রীর সাথে ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন করবেন তিনি । ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনের পর বসিরহাটে প্রশাসনিক বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী ।

আমফানের তাণ্ডবে রাজ্যের অবস্থা সম্পর্কে খোঁজ নিতে এদিন দুপুরে মুখ্যমন্ত্রীকে ফোন করেছিলেন অমিত শাহ। ফোনেই নরেন্দ্র মোদীকে পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি দেখে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানান মমতা। পরে সাংবাদিকদের তিনি বলেন , ” সুন্দরবন ও সংলগ্ন এলাকায় এসে দেখে যাওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে আসতে অনুরোধ করেছি।” 

তার আগে প্রধানমন্ত্রীও  টুইটারে জানান,ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত এলাকায় কাজ করছে বিপর্যয় মোকাবিলা দল। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কাজ করছেন শীর্ষ আধিকারিকরা। পরিস্থিতির উপর নজর রাখছেন। সহযোগিতার পথে চেষ্টার কোনও খামতি থাকবে না।   

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য , দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার মধ্যে সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে ক্ষয়ক্ষতির প্রভাব পড়েছে মারাত্মক। ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সুন্দরবনের ম্যানগ্রোভ অরণ্যের সাথে ক্যানিং মহকুমার গোসাবা , বাসন্তী সহ কুলতলী , জয়নগর এলাকার অধিকাংশ জায়গা l যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন , নেই বিদ্যুৎ সংযোগ l

কাকদ্বীপ , গঙ্গাসাগর সহ পাথরপ্রতিমা , বকখালি , ফ্রেজারগঞ্জ এর মত পর্যটন কেন্দ্র গুলি আমফানের তাণ্ডবে কার্যত ধুয়ে মুছে গিয়েছে। ঝড়ের দাপটে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে উত্তর ২৪ পরগনার হিঙ্গলগঞ্জ এলাকা l এছাড়া হাসনাবাদ , সন্দেশখালি সহ বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে এখন শুধুই হাহাকার l

Follow Me:

Related Posts