রাজ্য

হনুমানের ভয়ে বাথরুমের মধ্যে বন্দী পরিবার

Bangla24x7 Desk ঃ আগেও অনেকে হনুমানের খপ্পরে পড়েছেন, বেড়াতে গিয়ে , হনুমানের খাবার দিতে গিয়ে হনুমানের হাতে চড়ও খেয়েছেন অনেকে । আবার কেউ কেউ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন থাপ্পড় খেয়ে । এমন সব ঘটনা অনেকেরই জানা । কিন্তু এবারে হনুমানের কারণে পুরো পরিবার বাথরুমের মধ্যে বন্দী । এমন ঘটনা বোধ হয় আগে ঘটেনি । ঘটনাটি ঘটে ক্যানিংয়ে । ক্যানিং বাজারের মধ্যেই দোতালা বাড়ী সৌমেন রায়ের । নীচের তালাতে তিনি ব্যাবসা করতেন, আর দোতালাতে পরিবারকে নিয়ে থাকতেন তিনি । বৃহস্পতিবার লকডাওন থাকায় বাড়ীর মধ্যেই ছিল পরিবারের সকল সদস্য । দুপুরে ঠিক খাওয়াদাওয়া করার সময়  দেখা যায় ছাদের খোলা দরজা থেকে নেমে এসেছে একটি হনুমান। তারপর শুরু করে দেয় তাণ্ডব দেখানো । প্রথমে শোওয়ার ঘর তারপর রান্নাঘর । কিছু বুঝে ওঠার আগেই খাওয়া থেকে শুরু করে অন্যান্য জিনিসপত্র লন্ডভন্ড করতে শুরু পবন পুত্র হনুমান । আসবাবপত্র থেকে শুরু করে ডাইনিং টেবিল হনুমানের তাণ্ডবে লন্ডভন্ড । হনুমানের এইরূপ দৃশ্য দেখে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন পরিবার । পরে নিজের পরিবারকে বাঁচানোর তাগিদে পরিবারের সদস্য সমেত নিজে বাথরুমে আশ্রয় নেন ।  প্রায় সারা দুপুর সেখানেই বন্দী থাকেন তারা । এমন সময়ে ফোন করে যে কাউকে খবর দেবেন তেমন অবস্থাতে ছিলেন না তিনি ফোন ছাড়ায় বাথরুমে আশ্রয় নিয়েছিলেন তিনি । পাশেই মাতলা বনদফতরের অফিস ছিল সেখানে খবর দেওয়ার মতো অবস্থায় ছিলনা । কাউকে যে সমস্যার কথা জানাবে লকডাওনে রাস্তাতে লোক ই নেই । পরে খাওয়াদাওয়া শেষ করে নিজে থেকেই চলে যান পবনপুত্র ।

বাড়ির মালিক সৌমেন রায় জানান, দোকানের কাজ শেষ করে দোতালাতে গিয়ে দেখি , হনুমান ভাঙচুর করে বসে বসে সবজী খাচ্ছে । তাকে তাড়ানোর চেষ্টা করতেই সে আরও ঘড়ের ভিতরে ঢুকে যায় । সেই মুহূর্তে ভোয় পেয়ে আমরা সবাই বাথরুমে আশ্রয় নিই ।

Follow Me:

Related Posts