রাজ্য

নিম্নমানের পরিষেবার ভিডিও পোস্ট করায় ফোন কেড়ে নিল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

Bangal 24×7 Newsdesk: করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা রীতিমত বাড়ছে রাজ্যে, আর স্বাস্থ্য ব্যবস্থা তা তো ইতিমধ্যেই ভাইরাল! একাধিক হাসপাতালের স্বাস্থ্য পরিষেবায় ক্ষুদ্ধ রোগী থেকে প্রশাসন। মূখ্যমন্ত্রীর কড়া বার্তা কে উপেক্ষা করে আজও চলছে নিম্নমানের পরিষেবা!

হাসপাতালের নিম্নমানের পরিষেবা, যার মধ্যে রয়েছে নিম্নমানের খাবার, অস্বাস্থ্যকর নোংরা টয়লেট এমনকি চিকিৎসাও করা হয়না ঠিকমতোভাবে এমনই অভিযোগ তুলেছেন উত্তর হাওড়ার জয়সওয়াল হাসপাতালে চিকিৎসারত শালকিয়ার বাসিন্দা মৌমতা ঘোষ নামের এক করোনা আক্রান্ত রোগী। তিনি হাসপাতালের অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও নিম্নমানের পরিষেবা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও পোস্ট করেন। হাসপাতালের অবস্থা দেখে চক্ষু চড়কগাছ হয় নেটিজেনদের। ভিডিওটি নজড়ে পড়ে রাজ্যের ক্রীড়া মন্ত্রী লক্ষী রতন শুক্লার। তিনি হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসকদের সাথে রোগী পরিষেবা সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনা করেন।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি, ওই মহিলাকে সঠিক পরিষেবাই দেওয়া হচ্ছে। মহিলাটির সম্পূর্ণ অভিযোগ মিথ্যে। এরপরে আরোও জানা যায় যে, ভিডিওটি ভাইরাল হবার পর হাসপাতালের তরফ থেকে সমস্ত রোগীদের কাছ থেকে মোবাইল ফোন নিয়ে নেওয়া হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি হাসপাতালে কোন রোগীর কাছে মোবাইল থাকার অনুমতি নেয়। তবে লিখিত নোটিশ না দেখা পর্যন্ত মোবাইল দিতে অস্বীকার করেন মৌমিতা। তিনি বলেন ভিডিওটি পোস্ট করার  পর একটি অজানা নম্বর থেকে তাঁর কাছে ফোন আসে। ফোনে তাঁকে ভিডিওটি ডিলিট করার হুমকি দেওয়া হয়। পরিচয় জানতে চাইলে ওই ব্যক্তি নিজেকে মন্ত্রীর পিএ বলে পরিচয় দেয়। এ ব্যাপারে ক্রীড়া মন্ত্রী জানান তাঁর দপ্তর থেকে ফোন করা হয়নি। পরে জানা যায় ওই নম্বরটি হাসপাতালের একজন চিকিৎসকের। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ওই অভিযুক্ত চিকিৎসক। নম্বরটি হাওড়া জেলাশাসক ও কমিশনারের কাছে দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

Follow Me:

Related Posts