রাজ্য

করোনা সংক্রমণ নিয়ে মানুষকে সচেতন করতে সরকারি বৈঠক হল মালদহের কালিয়াচকে

গোলাম হাবিব , মোথাবাড়ি , মালদহ : করোনা সংক্রমণ নিয়ে মানুষকে সচেতন করতে কালিয়াচক ২ নম্বর ব্লকের সুকান্ত ভবনে হয়ে গেল এক সরকারি বৈঠক। উপস্থিত ছিলেন পুলিশ আধিকারিক এর সি আই সুশান্ত কুমার চট্টোপাধ্যায়, মোথাবাড়ি বিধানসভার বিধায়িকা সাবিনা ইয়াসমিন । এছাড়াও কালিয়াচরা ২ নম্বর ব্লকের বিডিও সঞ্জয় ঘিসিং , বাঙ্গি টোলা হাসপাতালের BMOH কৌশিক মিস্ত্রি , মোথাবাড়ি থানার ওসি বিটুল পাল মহাশয় , উপস্থিত ছিলেন কালিয়াচক ২ নম্বর ব্লকের সমস্ত অঞ্চলের প্রধান, ও মেম্বাররা সহ এলাকার ব্যবসায়ী সমিতির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনার মূল বিষয় ছিল ভিন রাজ্য থেকে আসা পরিযায়ী শ্রমিক যাতে চোরাই পথে প্রবেশ না করতে পারেসেই বিষয় সচেতন করতে প্রধান ও মেম্বারদের নজর রাখতে বলা হয়। এছাড়াও জানানো হয় পরিযায়ী শ্রমিকরা গ্রামে প্রবেশ করার আগে সোয়াব টেষ্ট করার পরে তাদের গ্রামের প্রাইমারি স্কুল গুলিতে বা অন্যত্র কোয়ারেন্টাই ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে । এলাকার যেসব জায়গায় বাজার বসে বাজার বসার একটা নির্দিষ্ট সময় ধারণ করে দেওয়া হবে। ক্রেতা এবং বিক্রেতা উভয়কে মাক্স ব্যবহার করতে হবে। মাক্স ছাড়া কোন কেনাকাটা করা যাবে না। ভিন রাজ্য থেকে বিভিন্ন চোরাপথে সাইকেলে ভ্যানে করে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের প্রতি লক্ষ্য রাখবে আশা কর্মীরা। লক্ষ রাখবে প্রত্যেক গ্রামের ভিলেজ পুলিশ।

বাঙ্গি টোলা হাসপাতালের BMOH কৌশিক মিস্ত্রি জানান , আগে লালারস টেস্ট করার পর রিপোর্ট আসতে ৩ থেকে ৪ দিন লেগে যেত, এখন সেটিকে অন লাইনের মাধ্যমে করা হয়েছে ,এবং দুই দিনের মধ্যে রিপোর্ট মেসেজের মাধ্যমে ফোনে দেওয়া হচ্ছে। মোথাবাড়ির বিধায়িকা সাবিনা ইয়াসমিন বলেন , যেভাবে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের বেড়ে চলেছে সেই পরিস্থিতিতে বাইরে থেকে আসা পরিযায়ী শ্রমিকরা যাতে যেখানে সেখানে ঘুরে না বেড়ায় সেই জন্য আসার পরে তাদের টেষ্টের রিপোর্ট আসা পর্যন্ত তাদের জন্য আলাদা ভাবে থাকার ব্যাবস্থা করা হয় । এই নিয়ে প্রধান ও মেম্বারদের নিয়ে আজ মিটিং করা হয়।

Follow Me:

Related Posts