আবহাওয়া রাজ্য

আমফান বিধ্বস্ত রাজ্যে এবার কি বন্যার পরিস্থিতি? কি বলছে হাওয়া অফিস?

Bangla 24×7 Desk : আমফানের টাটকা ক্ষত তে নুনের ছিটে দিতে আবার ও কি  দক্ষিণবঙ্গে আসতে চলেছে নতুন কোনো ঝড়? রাজ্যে ইতিমধ্যেই প্রবেশ করেছে বৃষ্টি। তবে, দক্ষিনবঙ্গে বৃষ্টির বিরাম নেই কোনো মাসেই। আমফানের জেরে চাষের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে ব্যাপক আকারে। বর্ষার চাষ বিশবাঁও জলে। বাজারে শাক সবজির দাম আকাশ ছোঁয়া। এরই মধ্যে হাওয়া দফতরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ভাসতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গ। আপনি কতটা সুরক্ষিত ? দেখে নিন।

মেঘলা আকাশ, মাঝে মাঝে এক পসলা বৃষ্টি। কবির কলমে এ দৃশ্য জাগতিক মাধুর্যে ভরা হলেও চাষীদের কাছে দুঃস্বপ্ন। বছরের শুরু থেকেই সোনালী স্বপ্নে মিশে গেছে দুশ্চিন্তার কালো মেঘ। করোনার জেরে লকডাউন, অতি বর্ষা ও বিভীষিকাময় আমফানের জেরে সাধারন মানুষের স্বপ্নের পিঠ ঠেকেছে দেওয়ালে। শ্রাবনের এই ভরা বর্ষাতে হয়ত ভেসে যাবে তাঁদের আঁকড়ে ধরে থাকা শেষ সম্বলটুকু।

সপ্তাহের শুরু থেকেই উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলাতে অতিবৃষ্টির কারনে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। আবহাওয়া দফতরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যেই পশ্চিমবঙ্গ, উত্তরাখণ্ড, উত্তরপ্রদেশ, কর্নাটকের উপকূলবর্তী এলাকা, অন্ধ্রপ্রদেশের উপকূলবর্তী এলাকা, বিহার এবং ঝাড়খণ্ড, এই রাজ্যগুলোতে বয়ে যেতে পারে তীব্র ঝোড়ো হাওয়া, রয়েছে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনাও।

বুধবার থেকে দার্জিলিং কালিম্পং এর বিভিন্ন এলাকা ভাসতে পারে তুমুল বৃষ্টির জেরে। অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে কোচবিহার, ও আলিপুরদুয়ারে ও।

আসাম ও মেঘালয় সহ উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলিতে হাওয়া দফতরের তরফ থকে দেওয়া হয়েছে জরুরী সতর্কতা। বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে আগামী কয়েকদিনে রয়েছে বজ্রবিদ্যুৎ সহ  বৃষ্টির সম্ভাবনা। মালদহ, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে বজ্রবিদ্যুৎ সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

 হাওয়া অফিসের দেওয়া এমন ট্যুইট বার্তাই ঘুম উড়েছে উপকূলবাসীর।

Follow Me:

Related Posts