রাজ্য

পাথরপ্রতিমা নদীতে মাছ ধরার সময় বৃদ্ধ মৎস্যজীবীকে টেনে নিয়ে গেল কুমির

Bangla 24 x7 Desk : নদীতে মাছ ধরার সময় স্ত্রীর সামনে থেকে স্বামীকে টেনে নিয়ে গেল কুমীর । বুধবার সকাল ৭ টা নাগাদ চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পাথর প্রতিমা গোবদিয়া নদীতে । নিখোঁজ মৎস্যজীবী ৭০ বছরের বিষ্ণুপদ সাঁতরা স্থানীয় দুর্গা গোবিন্দপুরেরর বাসিন্দা । । নিখোঁজ মৎস্যজীবীর খোঁজে পুলিশ ও বন দপ্তরের পক্ষ থেকে যৌথভাবে নদীতে তল্লাশি চালানো হচ্ছে । কিন্তু অমবস্যার কোটালের জেরে তল্লাশির কাজ ব্যাহত হচ্ছে , ভাটার পর তল্লাশি পুনরায় শুরু হবে ।

এই ঘটনা জানাজানি হয়ে যেতে এলাকার প্রচুর মানুষ ভিড় করছে । প্রৌঢ় বিষ্ণুপদ এদিন সকালে প্রতিদিনের মতো নদীতে জাল ফেলতে গিয়েছিলেন স্ত্রী মঞ্জুরি নিয়ে । নদীতে তখন ভরা জোয়ার । নদীর এক কোমর সমান জলে দাঁড়িয়ে জাল ফেলছিলেন । স্ত্রী নদীর পাড়ে মাছ কুড়ানোর জন্য দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছিলেন ।

সেই সময়ই কুমির হঠাৎ করে বিষ্ণুপদ’র কোমরের নীচে কামড় দিয়ে টানতে শুরু করে । প্রৌঢ় তাঁর স্ত্রীর উদ্দেশ্য শেষবার বলেছিলেন আমাকে ধর কিন্তু সেই কথা শেষ হওয়ার আগেই নদীর ঘোলা জলের মধ্যে প্রৌঢ়কে টেনে নেয় কুমীর । স্ত্রী চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করে দেন । স্থানীয় বাসিন্দা ও অন্যান্য মৎস্যজীবীরা সাথে সাথে সেই স্থানে ছুটে আসেন । ডিঙি নৌকায় খোঁজ শুরু করা হয় কিন্তু দুপুর পর্যন্ত প্রৌঢ়ের কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি ।

এই এলাকাতে এই রুপ কুমিরের আক্রমনের চিত্র আগে কখনো দেখা যায়নি বলে জানিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসীরা । কারন নদীতে মাছ কাঁকড়া ধরে দিন চলে উপকূলের প্রান্তিক মানুষদের । তারা লক ডাউন ও আমফানের জেরে চরম আর্থিক সংকটের মধ্যে রয়েছেন । নিখোঁজ মৎস্যজীবী বিষ্ণুপদ তার পাঁচ ছেলে, বউমা, নাতি, নাতনি নিয়েই ভরা সংসার । প্রতিদিন মাছ কাঁকড়া ধরেই বাড়িতে খেতেন আর সংসার চালাতেন । এই মাছ , কাঁকড়া বিক্রি করে সামান্য রোজগার করতেন ।

এই ঘটনাটির পরে থেকেই স্ত্রী মঞ্জুরিও আতঙ্কিত । ভালো করে কথা বের হচ্ছে না তাঁর মুখ থেকে । অন্যদিকে স্ত্রী মঞ্জুরি স্বামীকে নিয়ে আতঙ্কের প্রহর গুনছেন ।

Follow Me:

Related Posts