রাজ্য

লকডাউনে তামিলনাড়ু থেকে সাইকেল চালিয়ে ঘরে ফিরলেন বাংলার শ্রমিক

Bangla 24×7 Desk : করোনার সংক্রমনের আশঙ্কায় দেশ জুড়ে দীর্ঘমেয়াদি লক ডাউন পরিস্থিতি কার্যকর হয়েছে । এই লক ডাউনের ফলে নানা রকম অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছেন বিভিন্ন শ্রমিকরা । কারণ লক ডাউনের জেরে তাঁদের কাজকর্ম সব বন্ধ রয়েছে । যার ফলে উপার্জনও হচ্ছে না । অবশেষে তাই পেটের টানে অবশেষে সাইকেল চালিয়ে ঘরে ফিরলেন এক শ্রমিক ।

জানা গিয়েছে , দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার ডায়মণ্ড হারবার ২ নং ব্লকের রামনগর থানার অন্তর্গত সিমলা গ্রামের বাসিন্দা ২৩ বছরের আতিউল শাহ । মাস তিনেক আগে তিনি তামিলনাড়ুর একটি এসি মেশিন তৈরির কারখানায় ঠিকাদারের অধীনে কাজে যোগ দেন । কিন্তু লক ডাউন ঘোষণা হওয়ার পর থেকে কারখানায় কাজ বন্ধ হয়ে যায় । একদিকে পকেটে অর্থের টান ওপর দিকে বাড়ি ফেরার রাস্তা বন্ধ । এই দুইয়ের জাঁতাকলে পড়ে কিছুদিন তামিলনাড়ুতেই আটকে ছিলেন ঐ যুবক । কিন্তু পেটের জ্বালা বড় জ্বালা ! তাই তিনি বাড়ি ফেরার সিদ্ধান্ত নেন । কিন্তু লক ডাউনের মধ্যে পরিবহন ব্যবস্থা তো বন্ধ । ফেরার উপায় নেই । তাতে কি হয়েছে ! বাড়ি ফেরার ইচ্ছা যখন একবার জেগেছে তখন আর আটকায় কে ! তেরো দিন ধরে সাইকেল চালিয়ে কয়েক হাজার কিলোমিটার রাস্তা অতিক্রম করে তামিলনাড়ু থেকে নিজের বাড়িতে ফেরেন ঐ যুবক । তাঁকে পেয়ে দুশ্চিন্তা মুক্ত হন তাঁর পরিবার ।

তাঁর গ্রামে ফেরবার খবর আসতেই ডায়মণ্ড হারবার ২ নং ব্লক তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কর্মীরা তাঁকে নিয়ে ডায়মণ্ড হারবার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নিয়ে যান । সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পরে চিকিৎসকরা তাঁকে ১৪ দিন গৃহ পর্যবেক্ষণে থাকার নির্দেশ দেন । তামিলনাড়ু থেকে ফেরা ঐ যুবকের পাশে দাঁড়িয়েছেন ডায়মণ্ড হারবার ২ নং ব্লক তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি মাহাবুবুর রহমান গায়েন । তিনি ঐ যুবকের হাতে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী এবং অত্যাবশ্যকীয় সামগ্রী তুলে দেন । এর পাশাপাশি তিনি ঐ যুবককে করোনা ভাইরাস থেকে সচেতন থাকতে ও সমস্ত রকম সরকারি বিধি মেনে চলার পরামর্শ দেন ও পাশে থাকার আশ্বাস দেন । কোন রকম শারীরিক সমস্যা দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়ার কথা বলেন ও স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মীদের জানানোর কথা বলেন ।

Follow Me:

Related Posts