রাজ্য

বাগনান কাণ্ডে কলেজ ছাত্রীর মায়ের দেহ ফিরতেই এলাকায় তুমুল উত্তেজনা , তৃণমূল নেতার বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর

Bangla 24×7 Desk : মেয়ের সম্মান রক্ষা করতে গিয়ে মায়ের মৃত্যু । মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার বাগনানে । শ্লীলতাহানির ঘটনায় নাম জড়িয়েছে বাগনান ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল সদস্যার স্বামী তৃণমূল নেতা কুশ বেরার।

জানা গেছে , কিছু সমস্যা থাকার কারণে ঘরের ভিতর থেকে উঠে গিয়ে বাড়ির ছাদে গিয়েছিল বাগনান কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ঐ ছাত্রী । সেই সময় ছাদে লুকিয়ে থাকা অভিযুক্ত পিছন থেকে জড়িয়ে ধরে ঐ ছাত্রীর শ্লীলতাহানি করে । মেয়ে চিৎকার শুনে ছাদে ওঠেন ঐ ছাত্রীর মা । মেয়ের শ্লীলতাহানিতে বাধা দিতে গেলে ব্যক্তির সঙ্গে ধস্তাধস্তি হতে শুরু হয় কলেজ ছাত্রীর মায়ের। ধাক্কা দেয় ঐ ব্যক্তি। কলেজ ছাত্রীর মা ছাদের সিঁড়ি থেকে পড়ে মারা যান । হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা ।

বাগনান কাণ্ডের জেরে এখনও উতপ্ত এলাকা । অভিযুক্তের পক্ষে যেন কোন আইনজীবী না সওয়াল করেন এই দাবিতে উলুবেড়িয়া মহকুমা আদালতের সামনে বিক্ষোভে সামিল হন এলাকাবাসীরা । এদিন কলেজ ছাত্রীর মায়ের দেহ উলুবেড়িয়ার গোপালপুরের বাড়িতে আনার পরে নতুন করে এলাকায় অশান্তি শুরু হয় । বিক্ষোভ দেখানোয় এক বিজেপি কর্মীর উপর কাটারি নিয়ে আক্রমণ করে শ্লীলতাহানিতে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা কুশ বেরার আত্মীয়রা । এই ঘটনায় উত্তেজিত এলাকাবাসী অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা কুশ বেরার বাড়ি ব্যাপক ভাঙচুর করে । পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে এলাকায় মোতায়েন রয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী ।

স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক অরুণাভ সেন জানিয়েছিলেন অভিযোগ প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে l সেই কথার রেশ কাটতে না কাটতেই কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই অভিযুক্ত তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিল তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব l বুধবার রাতেই রাজ্যের পুরমন্ত্রী তথা জেলা তৃণমূল পর্যবেক্ষক ফিরহাদ হাকিম জানান , “ অভিযুক্তকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে ” l

এই প্রসঙ্গে হুগলীর বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন , ” তৃণমূলে যোগদান করলে ধর্ষণের লাইসেন্স প্রাপ্ত হওয়া যায় । বাচ্ছা মেয়েরাও নিস্তার পায় না । এই ঘটনায় পুলিশ যদি মৃত মহিলা করোনা আক্রান্ত ছিলেন বলে প্রমান করার চেষ্টা করে তাহলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামতে কেউ পিছপা হব না ” ।

Follow Me:

Related Posts