রাজনীতি রাজ্য

করোনার বিরুদ্ধে থামল লড়াই , প্রয়াত ফলতার তৃণমূল বিধায়ক তথা সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের কোষাধ্যক্ষ তমোনাশ ঘোষ

Bangla 24×7 Desk : থেমে গেল সব লড়াই । চিকিৎসকদের আপ্রাণ চেষ্টাকে ব্যর্থ করে করোনার বিরুদ্ধে থামল লড়াই । প্রয়াত হলেন ফলতার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক তথা সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের কোষাধ্যক্ষ তমোনাশ ঘোষ ।

জানা গেছে , তমোনাশ ঘোষ দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ নিগমের চেয়ারম্যানের দায়িত্বে ছিলেন । মে মাসে তিনি এসবিএসটিসির কাজেই দুর্গাপুর গিয়েছিলেন বলে জানা যায়। গত ২২ শে মে কলকাতায় ফেরার পরে এই তৃণমূল বিধায়কের লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। রিপোর্ট আসতে জানা গিয়েছিল তিনি কোভিড পজিটিভ।

পরের দিন ২৩ শে মে তাঁকে ই এম বাইপাস সংলগ্ন একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। তমোনাশবাবুর শরীরে রক্তে অক্সিজেন স্যাচুরেশন ছিল খুব কম । পাশাপাশি রক্তে সোডিয়াম ও শর্করার পরিমান ছিল খুব বেশী । তীব্র শ্বাসকষ্ট থাকার জন্য হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি । অনেক দিন কেটে গেলেও তমোনাশ বাবুর শারীরিক অবস্থার কোন রকম উন্নতি হয়নি । বরং পরিস্থিতি আরও আশঙ্কাজনক হয়েছিল । ভেন্টিলেশনে থাকার ফলে গলায় সংক্রমণ সৃস্টি হয় ।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় , ” ফলতার তিন বারের বিধায়ক ও ১৯৯৮ সাল থেকে থাকা দলের কোষাধ্যক্ষ আজ আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন । তিনি টানা ৩৫ বছর আমাদের সাথে ছিলেন । সামাজিক কাজে অবদান রয়েছে ” । প্রয়াত বিধায়কের পরিবার ও পরিজনকে সমবেদনা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী । তমোনাশ বাবুর মৃত্যুতে আজ নবান্নে সর্বদলীয় বৈঠক বাতিল হতে পারে বলে জানা গেছে ।

তমোনাশ বাবুর ব্যপারে হাসপাতালের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রেখে চলেছিলেন রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী l পরিবহন মন্ত্রীর সাথে যোগাযোগ রেখে চলেছিলেন প্রয়াত তমোনাশ বাবুর দুই মেয়েও l ঘনিষ্ঠ মহলের খবর দলীয় সহকর্মীর মৃত্যুতে শুভেন্দু অধিকারী অত্যন্ত মর্মাহত l

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বহু আন্দোলনের শরিক ছিলেন তমোনাশ বাবু l ১৯৯৮ সালে তৃণমূলের জন্মলগ্ন থেকেই তিনি দলের অন্যতম সৈনিক ছিলেন l মিশুকে প্রকৃতির এই মানুষটির অন্য রাজনৈতিক দলেও বন্ধু বান্ধব রয়েছে l এদিন সকালে দলীয় বিধায়কের মৃত্যুর খবরে শাসক দলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে l

Follow Me:

Related Posts