দেশ

ভারতীয় রাজনীতির আকাশ থেকে ঝরে গেল নক্ষত্র : প্রয়াত প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়

Bangla 24×7 Desk : পুরোপুরি লাইফ সাপোর্টে ছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায় । তাঁর মস্তিষ্ক কাজ করছিল না। শেষমেশ সোমবার শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। স্ত্রী শুভ্রা মুখোপাধ্যায় ২০১৫ সালের ১৮ আগস্ট প্রয়াত হন। রাষ্ট্রপতি থাকাকালীনই পত্নী বিয়োগ হয় প্রণববাবুর। তাঁর এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছেন।

গত ৯ আগস্ট রাতে নয়াদিল্লির রাজাজি মার্গের বাড়িতে বাথরুমে ভারসাম্য হারিয়ে পড়ে যান দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি তথা ভারতীয় রাজনীতির অন্যতম স্তম্ভ প্রণব মুখোপাধ্যায়। দিল্লির সেনা হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি । করোনা কালে এমন ঘটনা ঘটায় কোভিড টেস্ট হয় এই বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদের । রিপোর্টে ফলাফল আসে পজিটিভ । মস্তিস্কের গুরুতর আঘাতের চিকিৎসার জন্য তাঁর অস্ত্রোপচার করেন করেন চিকিৎসকরা ।

অস্ত্রোপচারের পরে আর জ্ঞান ফেরেনি তাঁর। এর পরে গভীর কোমায় চলে যান প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি। সেই থেকে আর জ্ঞান ফেরেনি প্রণববাবুর। কিন্তু অস্ত্রোপচার সফল হলেও তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে । অবস্থা এতটাই গুরুতর ছিল যে ভেন্টিলেশন সাপোর্টে দিতে হয় চুরাশি বছরের প্রণব মুখোপাধ্যায়কে । সেপটিক শকে ছিলেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি । ফুসফুসের সংক্রমণের জেরে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়েছে । বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের দল তাঁর দেখভাল করেছেন। গভীর কোমায় আচ্ছন্ন ছিলেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি। ছিলেন ভেন্টিলেটর সাপোর্টে।

প্রণব মুখোপাধ্যায়ের রেনাল প্যারামিটারে উন্নতি হয়েছে বলে জানা গিয়েছিল । প্রণববাবুর এই শারীরিক অবস্থার মধ্যে রেনাল প্যারামিটারে কিছুটা বদল হওয়ায় চিন্তায় পড়েছিলেন চিকিৎসকরা। দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন প্রণববাবু। গত দু’দশকের বেশি সময় ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ছিলেন। তা ছাড়া ২০১৪ সালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ নরেশ ত্রেহানের চিকিৎসায় ছিলেন তিনি।

বর্ণময় রাজনৈতিক জীবনে একাধিক ঘটনার সাক্ষী ছিলেন ভারতীয় রাজনীতির এই মহীরুহ । ২০১২ সালের ২৫ জুলাই রাষ্ট্রপতি হিসাবে শপথ নেন প্রণববাবু। ২০১৭ সালের ২৫ জুলাই পর্যন্ত ছিলেন সেই পদে। ২০১৯ সালে ভারতের সর্বোচ্চ নাগরিক সম্মান ‘ভারতরত্ন’ সম্মানে সম্মানিত হয়েছিলেন দেশের প্রথম বাঙালী রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় ।  

Follow Me:

Related Posts