রাজ্য

নাবালিকার বিয়েতে বরযাত্রীর বেশে পুলিশ ! বিয়েতে কন্যাদানে বাধা হলেন চাইল্ড হেল্প লাইনের কর্তারা

Bangla 24×7 Newsdesk: বিয়ের ভোজ খাওয়া হলেও নিমন্ত্রিতদের বিয়ে দেখা হল না ! বরযাত্রীদের বেশে হাজির পুলিশ। নাবালিকার বিয়েতে কন্যাদানে বাধা হলেন চাইল্ড হেল্পলাইনের কর্তারা।

রাজ্য সরকার চাইল্ড ম্যারেজ রোধ করতে একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করলেও তা রুখতে ব্যর্থ। রাজ্য সসকারের প্রচেষ্টার পাশাপাশি চাইল্ড ম্যারেজ রোধে দরকার বাবা-মায়ের ইচ্ছাশক্তি। কেন্দ্রীয় সরকারের ‘বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও’ বা রাজ্য সরকারের ‘কণ্যাশ্রী’ সবগুলির উদ্দেশ্য হল উপযুক্ত বয়সের আগে কোনো মেয়েকেই পড়ায়া ধন মনে না করে বিয়ের পিড়িতে বসিয়ে দেওয়া হয়!

পড়াশোনার দায়িত্ব সরকারের, মেয়েকে উপযুক্ত করে তোলার দায়িত্ব বাবা-মায়ের। বাবা-মায়ের কর্তব্য ভুলে ১৫ বছর বয়সী এক নাবালিকার অমতে তার বিয়ের আয়োজন করে তার বাব-মা। বাধ্যহয়ে বিয়ের আগের দিন ওই নাবালিকা চাইল্ড হেল্পলাইন-এ ফোন করে তার সমস্যার কথা জানায়। স্থানীয় পুলিশ পৌছায় বিয়ের মন্ডপে।

সোমবার সকালে গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান পর্যন্ত সমাপ্ত। হিঞ্জলগঞ্জের সাহেবখালি নিবাসী বরের বাড়িতে প্রস্তুত ছাদনাতলা। তবে বিয়ের আগেই কনের জায়গায় পৌঁছয় স্থানীয় থানার পুলিশ। নাবালিকার বাবাকে বোঝান হয় কিন্তু তাতেও মেয়ের বিয়ে বন্ধ করতে রাজি ছিলেননা নাবালিকার বাবা। পরে পুলিশের কড়া মেজাজে ও গ্রেপ্তারের ভয়ে পিছু হটতে বাধ্য হন বরপক্ষ ও কন্যাপক্ষ।

নাবালিকার বুদ্ধিতে এমন কার্য সফল হওয়াতে খুশি প্রশাসনের কর্তারা।

Follow Me:

Related Posts