অফবিট

লকডাউনে অনলাইন ক্লাস ! উজ্বল ভবিষ্যৎ , না কি গভীর সমস্যার সম্মুখীন আগামী প্রজন্ম ?

শানু মণ্ডল , ডায়মন্ড হারবার : দেশ আনলকের পথে। শিথিল হয়েছে কড়া লকডাউনের প্রতিবন্ধকতা। ছন্দে ফিরছে জেলা থেকে রাজ্য। এসবের মধ্যেই করোনার করালগ্রাসে ক্রমশ শেষ হচ্ছে জনজীবন।আনলক ২ তে খুলেছে বেশ কিছু দোকানপাট, শপিংমল, রেঁস্তোরা। কিন্তু, রাজ্য তথা দেশের সরকারি বা বেসরকারি সব স্কুলের ই পঠন পাঠন আপতত বন্ধ। উচ্চমাধ্যমিক ও স্নাতক স্তরের পরিক্ষাগুলি বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে সরকার। এমতাবস্থায়, কবে খুলবে স্কুলগুলি সে বিষয়ে দুশ্চিন্তায় অভিভাবকরা। অনলাইন ক্লাস কি পূরণ করছে ছাত্রছাত্রীদের চাহিদা? অনলাইন ক্লাস কি উপকারী নাকি অজান্তেই ক্ষতি হয়ে চলেছে ছাত্রছাত্রীদের?

কোভিড ১৯ কেড়েছে জীবনের ব্যাপ্তি। উন্মুক্ত পৃথিবীতে ঘর বন্দি হয়েছে মানুষ। এই অবস্থায় পঠন পাঠন সোনার পাথর বাটির মতোই কাল্পনিক। থমকে গিয়েছিল পড়ুয়াদের ভবিষ্যৎ, মুশকিল আসান করতে চালু হয়েছে অনলাইন ক্লাস। এই ক্লাস কতটা কার্যকরী? বিশেষজ্ঞদের মত কী? বাচ্ছাদের উপর কোনো কুপ্রভাব পড়ছেনা তো?

অনেক আগে থেকেই অভিযোগ আসছিল, স্মার্টফোনের প্রভাবে অমনোযোগী হয়ে উঠেছে পড়ুয়ারা। দিনের বেশিরভাগ সময় ই কাটছে ফোন হাতে, আর এখনতো পড়াশোনার পুরো প্রক্রিয়াটাই স্মার্টফোনের আওতায়। অভিভাকদের উপর করা এক সমীক্ষাতে দেখা গেছে, তারা বেশ অখুশি পুরো ব্যাপারটা নিয়ে। তাদের মতে বাচ্ছারা অনেক আগে থেকেই পুরোপুরিভাবে স্মার্টফোনেই আসক্ত, আউটডোর গেম গুলি ছেড়ে সারাদিন বাড়িতে বসে ফোনেই গেম খেলে, খাবার সময়তেও চোখ সরেনা ফোনের স্ক্রিন থেকে , শুধু পড়াশোনার সময়টুকুই তারা ফোন ছাড়া কাটাত। এখন ফোনেই ক্লাস চলার কারণে সারাদিনই ফোনে ব্যস্ত পড়ুয়ারা। এরফলে, তাদের মেজাজেও এসেছে পরিবর্তন। দুশ্চিন্তায় অভিভাবকরা।

গবেষণায় উঠে আসছে, শুধু মানসিক দিকেই নয়, স্মার্টফোনের রেডিয়েশনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ব্রেন, চোখের উপর পড়ছে মারাত্মক কুপ্রভাব। ফোন ব্যবহারের সময় স্বাভাবিকভাবেই চোখের পলক কম পড়ে, আর তার ফলেই চোখের রেটিনা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। শিশুদের উন্নয়নশীল মস্তিষ্ককের কার্যক্ষমতা ও হ্রাস পায়। ‘ইনসুলা’ যা কিনা মানব শরীরে দয়া ও সহানুভূতির সৃষ্টি করে সেটিও মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বই পড়ার উপকারিতা ভুলতে থাকা পড়ুয়ার দল এবার ভুগতে চলেছে মানসিক বিভিন্ন অবসাদে, তাদের অদূর ভবিষ্যৎ কতটা উজ্বল সেটি সত্যিই ভাববার বিষয়।

Follow Me:

Related Posts