অফবিট লাইফস্টাইল

লকডাউনে পর্ন দেখার আসক্তি বাড়ছে, গোটা বিশ্বকে হার মানিয়েছে ভারত..

Bangla24x7 Desk: লকডাউনে একঘেয়ে জীবন। না আছে সিনেমা দেখতে যাওয়ার কোন হিড়িক নেই, আবার বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডার দেখা নেই। অবশেষে কোয়ারেন্টাইনে থেকে সারাদিনের সঙ্গী শুধু স্মার্টফোন। এই স্মার্টফোন থেকেই পর্নসাইটে ঢুঁ মারছেন ভারতীয়রা। আগে যে পর্নসাইট দেখার আগ্রহ ছিল না এ দেশের, এমনটা তা নয়। কিন্তু ২১ দিনের লকডাউনে সেই রেকর্ড ভেঙ্গে আকাশ ছুঁলো। পর্ন দেখার প্রবণতায় তরুণ প্রজন্মের ছেলে মেয়েরা নাকি বিশ্বের বাকি সব দেশকে পিছনে ফেলে দিয়েছে। তবে এর পাশাপাশি আরো একটা তথ্য মিলছে যে পর্ন সাইটে এবারে মেয়েদের অংশ কম না।

সুত্রের খবর রিপোর্ট বলছে, মার্চে লকডাউন ঘোষণার কিছুদিন আগে থেকেই পর্নসাইটে সময় কাটানোর দিকে ঝুঁকতে শুরু হয়। আর তখন থেকেই আসক্তির হার ২০ শতাংশ বাড়ে। আর ঘরবন্দি থাকতে থাকতে সেই হার পৌঁছেছে ৯৫ শতাংশতে। সাইটের গ্রাফ ও সেই রিপোর্ট দিচ্ছে ফলে সেই সাইটে মানুষের যাতায়াত বেড়েছে কয়েক গুণ। এছাড়াও তো অন্যান্য নানা পর্নসাইট রয়েছে যেখানে বিনামূল্যেই নীল ছবি দেখা যায়।

তবে প্রশ্ন উথছে সব মহলেই, যেখানে ভারতে নীল ছবির দেখার সাইট বন্ধ আছে সেখানে কিভাবে নীল ছবি দেখা যায় তাই নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে সব মহলেই। উল্টোদিকে যেটা জানা যাচ্ছে দেশে তো বেশকিছু টেলিকম সংস্থা অ্যাডাল্ট সাইট ব্লক করে দিলেও অন্য উপায়ে তা খোলার ব্যবস্থা আছে।। তাছাড়া মিরর ডোমেনের মাধ্যমেও পর্নোগ্রাফি সাইটে পৌঁছনো সম্ভব। তবে আজকের দিনে দাঁড়িয়ে পর্নহাবের প্রকাশিত গ্রাফ থেকেও সে ছবি স্পষ্ট

লকডাউন ঘোষণার পর ফ্রান্সে ৪০ শতাংশ বেড়েছে পর্ন দেখার প্রবণতা। জার্মানি ও বিধ্বস্ত ইটালিতেও উর্ধ্বমুখী গ্রাফ। দুই দেশে আসক্তি বেড়েছে ২৫ ও ৫৫ শতাংশ। স্পেনে পর্নসাইটের ট্রাফিক বাড়ে ৬৫ শতাংশ। রাশিয়ায় ধাপে ধাপে লকডাউন হয়। যাতে পর্ন দেখার আগ্রহ বাড়ে ৫৬ শতাংশ। দক্ষিণ কোরিয়ায় অবশ্য সম্পূর্ণ লকডাউন না হওয়ায় সেখানকার গ্রাফটা তেমন চোখে পড়ার মতো হয়। মার্কিন মুলুকে নানা বাধানিষেধ সত্ত্বেও বেড়েছে পর্নের আসক্তি। কিন্তু এ ব্যাপারে গোটা বিশ্বকে রেকর্ডে হার মানিয়েছে ভারত।

Follow Me:

Related Posts