মহানগর রাজনীতি রাজ্য

প্রয়াত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র , শোকপ্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Bangla 24×7 Desk : করোনা আবহের মধ্যেই বঙ্গ রাজনীতিতে ইন্দ্রপতন l প্রয়াত কংগ্রেস নেতা সোমেন মিত্র l দীর্ঘ রোগভোগের পরে প্রয়াত হলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি l মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর l তাঁর স্ত্রী ও এক পুত্র বর্তমান l

পশ্চিমবঙ্গে কংগ্রেসের দায়িত্ব নিজের বলিস্ঠ কাঁধে নিয়ে নিরলস পরিশ্রম করে যেতেন প্রয়াত সোমেন মিত্র l বুধবার গভীর রাতে তাঁর প্রয়াণের মধ্যে দিয়ে অনাথ হয়ে পড়ল রাজ্য প্রদেশ কংগ্রেস। তাঁর বলিস্ঠ সাংগঠনিক দক্ষতা ছিল তুলনীয় l একটা সময় রাজনৈতিক সহযাত্রী হিসাবে পাশে পাওয়া প্রিয় “সোমেন দা”-র প্রয়াণে শোকাহত তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এক সময় প্রিয় সোমেন দা’র পরামর্শ মেনে রাজনৈতিক পদক্ষেপ নিতেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঠিক বিপরীতভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেও যোগাযোগ ছিল প্রয়াত সোমেন মিত্রের । প্রয়াত নেতার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে টুইট বার্তায় মুখ্যমন্ত্রী জানান , ” বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা , প্রাক্তন সাংসদ এবং প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রের প্রয়াণে আমি শোকাহত। তাঁর পরিবার , অনুগামী এবং শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি রইল আমার গভীর সমবেদনা।”

১৯৭২ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত শিয়ালদহ কেন্দ্রের বিধায়ক ছিলেন। কংগ্রেসের দুর্দিনেও তিনি দলত্যাগ করেননি। তবে ২০০৮ সালে কংগ্রেস ছেড়ে দিয়ে তিনি নিজস্ব রাজনৈতিক দল প্রগতিশীল ইন্দিরা কংগ্রেস প্রতিস্ঠা করেন। ২০০৯ সালে তিনি তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেন। রাজনীতির ময়দানে ‘ছোড়দা’ হিসাবে পরিচিত এই মানুষটি ২০০৯ সালে ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ নির্বাচিত হন l ২০১৪ সালে তিনি সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে দেন । ফিরে যান জাতীয় কংগ্রেসে। ২০১৮ সালে দ্বিতীয় বারের জন্য তিনি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি হন। আমৃত্যু সেই পদে আসীন ছিলেন সোমেন মিত্র । 

Follow Me:

Related Posts