মহানগর রাজনীতি রাজ্য

লকডাউনের মাঝেই ‘কল্পতরু’ অভিষেক,কমিউনিটি কিচেন থেকে হোম ডেলিভারি হবে খাবার!

মেহেবুব গাজী, ডায়মন্ড হারবারঃ মারণ ভাইরাস করোনার দাপোটে ট্রস্ত গোটা বিশ্ব। করোনার মোকাবিলায় আমাদের রাজ্যে চলছে লকডাউন। এই পরিস্থিতিতে আয়ইনকাম বন্ধ থাকায় দুঃস্থ মানুষদের টান পড়েছে পেটে। সেই পরিস্থিতিতে ধর্ম-বর্ণ এমনকি রাজনৈতিক ভেদাভেদ ভুলে দুঃস্থ মানুষজনদের সাহায্য হাত বাড়িয়ে মানবিকতার নজির গড়লেন ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দোপাধ্যায়। এই পরিস্থিতিতে এলাকার বাসিন্দাদের কাছে কল্পতরু রূপে সাংসদ। অসহায় মানুষে পাশে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার নিয়ে মঙ্গলবারই ফেসবুক লাইভে কমিউনিটি কিচেন তৈরির কথা বলেছিলেন তিনি। বুধবার সকাল থেকেই ডায়মন্ড হারবার লোকসভার ২১টি জায়গায় কমিউনিটি কিচেন তৈরির কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে।

ডায়মন্ড হারবার এক নম্বর ব্লক ও পুর এলাকার বাসিন্দাদের জন্য কিচেন তৈরির কাজ চলছে রবীন্দ্রভবন চত্বরে। দু’নম্বর ব্লকে কমিউনিটি কিচেনটি হচ্ছে সরিষা প্রাইমারি স্কুলের মাঠে। ফলতা ব্লকের জন্য চার নম্বর বেলসিংহাতে। মোট ২১টি জায়গায় এখন যুদ্ধকালীন তৎপরতায় কিচেন তৈরির কাজ চলছে। রবিবার থেকে এই কমিউনিটি কিচেন থেকে তৈরি খাবার পার্সেল হয়ে ঘরবন্দি ও দুঃস্থ মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হবে। এমনকি প্রয়োজনে ফ আপাতত ১২ দিন চালু থাকবে এই কমিউনিটি কিচেন। তারপর অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আপাতত প্রত্যেক দিন এলাকার প্রায় ৪০ হাজার মানুষকে খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা রাখা হয়েছে। তবে সংখ্যাটা আরও বাড়তে পারে। সাংসদের উদ্যোগে এই অভিনব পন্থায় রান্না খাবার পৌঁছে দেওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়তেই স্বাভাবিক ভাবেই খুশি হয়েছেন এলাকার দুঃস্থ ও অসহায় মানুষেরা।

সাংসদের এই উদ্যোগ নিয়ে ডায়মন্ড হারবার এক নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির পূর্তের কর্মাধ্যক্ষ গৌতম অধিকারী বলেন,”লকডাউনের জেরে এলাকার দুঃস্থ মানুষের কথা মাথায় রেখে আমাদের প্রিয় সাংসদ এই কমিউনিটি কিচেন খোলার নির্দেশ দিয়েছেন। ঘর বন্দী ও অসহায় মানুষজনের সবরকম সহোযোগিতা করার জন্যে প্রস্তুত আছি।” খাবার পেতে আগ্রহীদের আগামী ৯, ১০ ও ১১ তারিখ একটি নির্দিষ্ট টেলিফোন নম্বরে নিজেদের নাম নথিভুক্ত করাতে হবে। নম্বরটি হল ০৩৩-৪০৮৭৬২৬২। দলীয় সূত্রের খবর, খাবারের পদে থাকছে কোনও দিন ভাত, শুক্তর সঙ্গে ডিমের ঝোল। আবার কোনও দিন ভাত, মুসুর ডাল, আলু ভাজা ও বিভিন্ন সব্জির তরকারি। আবার কোনও দিন ভাত, শুক্ত, আলুচোখা, সজনে ডাটা দিয়ে মাছের ঝোল। কোনও দিন থাকবে সোয়াবিন ও মুরগির মাংস।

Follow Me:

Related Posts