দেশ

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির আদর্শ উদাহরণ ! অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমিপূজায় যোগ দিতে ৮০০ কিমি পথ পাড়ি দিলেন মুসলিম যুবক

Bangla 24×7 Desk : প্রকৃত রাম ভক্ত তো একেই বলে । বিধর্মী হয়েও অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমিপূজায় যোগ দিতে ৮০০ কিমি পথ পাড়ি দিলেন মুসলিম যুবক । ৫ ই আগস্ট অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজোয় হাজির থাকবেন তিনি । দেশের বিভিন্ন হিন্দু মন্দিরে পুজো দেওয়ার জন্য তিনি অন্তত ১৫ হাজার কিলোমিটার পথ হেঁটেছেন ছত্তিশগড়ের যুবক। রাত কাটিয়েছেন বিভিন্ন মঠ ও মন্দিরে।

জানা গিয়েছে , ছত্তিশগড়ের চন্দখুড়ি গ্রামের বাসিন্দা ফৈয়াজ। পুরাণ মতে , ভগবান শ্রী রামচন্দ্রের মাতা তথা রাজা দশরথের বড় রানী ছিলেন কৌশল্যা । তাঁর জন্মস্থান এই চন্দখুড়ি গ্রাম । তার মাটিও পবিত্র। সেই পবিত্র স্থান থেকে মাটি সংগ্রহ করে ফৈয়াজ রওনা দিয়েছেন অযোধ্যার উদ্দেশে। দূরত্বের হিসেব ছত্তিশগড়ের চন্দখুড়ি থেকে উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যা ৮০০ কিলোমিটারের একটু কম বেশি। সেটা কোন বড় কথা নয় ! আচার-আচরণ , রীতিনীতি ছাড়া বস্তুত ধর্মে-ধর্মে বিভেদ নেই। সব ধর্মের মূল মন্ত্র শান্তিস্থাপ ন, মানবসেবা। সেই শান্তি মন্ত্রেই মিলেমিশে যান হজরত মহম্মদ, শ্রীরাম , যীশু সকলেই। 

ফৈয়াজ বলেন , ” আমি মুসলিম হলেও কিন্তু রামচন্দ্রের ভক্ত । আমার পূর্ব পুরুষরা হিন্দু ছিলেন। বংশানুক্রমিক আমরা হিন্দু ” । ভারতে বিভিন্ন ধর্মের মানুষের মধ্যে বিভেদ তৈরির জন্য পাকিস্তানের কেউ কেউ ভুয়ো পরিচয়পত্র বানিয়ে হিন্দু অথবা মুসলিম নাম নিয়ে ভারতে ঢুকে পড়ছে। ” এর থেকেই একটা কথাই পরিস্কার যে ফৈয়াজের মতো মানুষজন যদি থাকেন তাহলে ভারতবর্ষে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও ধর্মনিরপেক্ষতার ধবজা টা ঠিকই উড়বে ।  

Follow Me:

Related Posts