দেশ স্বাস্থ্য

কীভাবে করোনা ভাইরাস বাতাসে ভাসে জানালেন, হু-র চিফ সায়েন্টিস্ট সৌম্যা স্বামীনাথন

Bangla 24×7 Desk : বিজ্ঞানীদের নতুন দাবি, সম্প্রতি ৩২টি দেশের ২৩০ জন বিজ্ঞানীরা মিলে আশঙ্কা করছেন যে এই ভাইরাস বাতাসেও ভাসে। কোভিড-১৯ এটি একটি বায়ুবাহিত রোগ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)-কে নির্দেশিকা পাল্টানোর আর্জিও জানিয়েছেন তাঁরা।

হু সংবাদমাধ্যমের এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন , করোনা জীবাণু বাতাসে ভাসার সম্ভাবনা নেই এটা একদমই বলা ভুল। খুব কম ক্ষেত্রেই রোগজীবাণু বাতাসে ভাসতে এবং বাঁচতে পারে, সংক্রমণও ঘটাতে পারে।

সৌম্যা স্বামীনাথন এর ব্যাখা দিয়ে বক্তব্য করলেন , আমরা যখন কথা বলি , গান গাইছি , শ্বাসপ্রশ্বাস নিচ্ছি, তখন অসংখ্য জলের ফোঁটা নির্গত হয় আমাদের প্রত্যেকের মুখে থেকে। এগুলির আকার নানা রকমের হয় । কোনওটা বড় আবার কোনওটা ছোট, । যেগুলো বড় সেগুলো ১-২ মিটারের মধ্যে মাটিতে পড়ে যায়। এই জন্যই সোশ্যাল ডিসট্যান্স বজায় রাখার কথা সবসময় বলা হয়েছে । কিন্তু সমস্যা হচ্ছে ছোট ফোঁটা টা কে নিয়ে। নাক মুখ থেকে বের হওয়া ছোট আকারের জলকণা নির্গত হওয়ার সময় যেগুলি আকারে ৫ মাইক্রনেরও কম, তাদের বলে এরোসোল। আকার ছোট ছোট সেই জলকণাগুলি বাতাসে আরও কিছুক্ষণ সময় ধরে থাকতে পারে। মাটিতে পড়তে একটু বেশি সময় লেগে যায় । মাঝের সময়টা হাওয়াতেই ভাসে। হাওয়ার সাথে সাথে এদিক ওদিক হয়ে যেতে পারে । ফলে সোশ্যাল ডিসট্যান্স রাখা মানুষেরাও সেই কণাগুলি শ্বাস নেওয়ার সাথে সাথে গ্রহণ করে নিতে পারেন। তাই এই সংক্রমণকে বায়ুবাহিত সংক্রমণ বলা হয়েছে ।

তিনি আরও বললেন , কোনও ব্যক্তির মুখ থেকে বের হওয়ার পরে ছোট জলের ফোঁটাগুলি অন্তত ১০-১৫ মিনিট পর্যন্ত বাতাসে ভেসে থাকতে পারে।সেখান থেকে সেইসময় কেউ যদি জাতায়াত করে তাহলে তার মধ্যে চলে যেতে পারে এই সংক্রমন ।

Follow Me:

Related Posts