দেশ

চিনের সাথে সংঘর্ষে শহীদ রাজ্যের দুই জওয়ানের গান স্যালুটের পরে শেষকৃত্য

Bangla 24×7 Desk : চিনা সেনা বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে শহীদ হয়েছেন এই রাজ্যের দুই জওয়ান . চিনের সাথে সংঘর্ষে শহীদ হওয়া ২০ জন জওয়ানদের মধ্যে ছিলেন বীরভূমের মহম্মদ বাজারের বাসিন্দা রাজেশ ওরাং এবং আলিপুরদুয়ারের বিপুল রায়। চিনের সাথে সংঘর্ষে শহীদ হওয়া ভারত মাতার দুই বীর সন্তানকে পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষ বিদায় জানানোর মধ্যে দিয়ে শেষকৃত্য হবে ।

হাসিমারার সেনা ছাউনিতে সারা রাত রাখা ছিল লাদাখের আরেক শহিদ বিপুল রায়ের দেহ। তাঁর স্ত্রী রুম্পা পাঁচবছরের মেয়েকে নিয়ে মিরাট থেকে হাসিমারায় আসবেন। তারপরেই বিপুলের দেহ নিয়ে বিন্দিপাড়ার দিকে রওনা হবে সেনাবাহিনী। বিপুলের দেহ ফেরার অপেক্ষায় রয়েছে বিন্দিপাড়া। তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানানোর প্রস্তুতিও শেষ। বিকেল চারটের আগে দেহ এসে পৌঁছবে না বলে জানা যাচ্ছে ।

বৃহস্পতিবার রাতেই পানাগড় সেনা ছাউনিতে শহীদ রাজেশ ওরাং এর দেহ আনার পরে সেখানেই গান স্যালুট জানান সেনা বাহিনীর জওয়ানরা। আজ ভোরে পানাগড় থেকে দেহ নিয়ে মহম্মদ বাজারের দিকে রওনা হয় সেনাবাহিনী। সাড়ে সাতটা নাগাদ ইলাম বাজারে আসতেই পথের ধারে জমা হওয়া বহু মানুষ নিহত জওয়ানকে শেষ শ্রদ্ধা জানান। তারপর দুবরাজপুর সিউড়ি হয়ে সেনাবাহিনীর কনভয় ঢোকে মহম্মদ বাজারের বেলগড়িয়া গ্রামে। পঁয়ত্রিশ মিনিটের পথ পৌছতে সময় লাগল দুই ঘণ্টার অধিক । পথের ধারে জমা হওয়া রাশি রাশি মানুষ শেষ শ্রদ্ধা জানালেন শহিদ রাজেশ ওরাংকে।

বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ব্যক্তিত্বরা উপস্থিত ছিলেন শহিদ রাজেশ ওরাংকে শেষ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য । বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল সহ উপস্থিত ছিলেন মৎস্যমন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিনহা এবং কৃষিমন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায় । বিজেপির তরফে উপস্থিত ছিলেন সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় ও সৌমিত্র খাঁ । এরপর দুপুর পৌনে বারোটা নাগাদ বাড়ির সামনেই খালি জমিতে সমাধিস্থ করা হয় তাঁকে।

Follow Me:

Related Posts