Uncategorized

প্রথম দুই পর্যায়ের ‘কোভ্যাক্সিন’ ট্রায়ালের চূড়ান্ত প্রস্তুতি , ট্রায়ালের জন্য আইসিএমআরের তালিকায় দেশের ১২ টি হাসপাতাল

Bangla 24×7 Desk : যেভাবে দেশে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে তাতে জরুরি ভিত্তিতে ভ্যাকসিন আনা প্রয়োজন। করোনার সম্ভাব্য এই প্রতিষেধকের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের চূড়ান্ত প্রস্তুতি শুরু করে দিল ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিক্যাল রিসার্চ। যে জন্য মোট ১২টি পরীক্ষাকেন্দ্রের একটি তালিকা ইতিমধ্যে প্রস্তুত করা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে দিল্লি ও পাটনার এইমস এর নাম । সেই জন্য মোট ১ হাজার ১০০ জন স্বেচ্ছাসেবকের নাম নথিভুক্ত করবে আইসিএমআর।

জানা যাচ্ছে , প্রথম পর্যায়ের ‘কোভ্যাক্সিন’ দেওয়া হবে ৩৭৫ জনের দেহে । যার জন্য নাম নতিভুক্ত করতে হবে ১৩ ই জুলাই এর মধ্যে । প্রত্যাশা মত ফল পাওয়া গেলে তারপরে দ্বিতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল শুরু হবে। সেই ক্ষেত্রেও নাম নতিভুক্ত করতে হবে । বয়স, বর্ণ, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা নির্বিশেষে বহু মানুষের উপর এই প্রতিষেধক প্রয়োগ করে পরীক্ষা করা হয়। মোট তিন ধাপে এই ট্রায়াল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়। এমনটাই জানিয়েছেন ভাইরোলজিস্টরা ।

কোনও ভ্যাকসিন প্রি-ক্লিনিকাল ট্রায়াল অতিক্রম করলেই ক্লিনিকাল ট্রায়ালে যেতে পারে। প্রি-ক্লিনিকাল ট্রায়ালের অর্থ হল বিভিন্ন প্রাণীর শরীরে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা। ‘কোভ্যাক্সিন’ সেই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পেরেছে। এবার আসল পরীক্ষা । আইসিএমআরের দাবি , ভ্যাকসিন ট্রায়ালের ক্ষেত্রে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইড লাইন মেনেই এগোনো হচ্ছে। এখনও পর্যন্ত গোটা বিশ্বে মোট ১০০টি টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল হয়েছে। কিন্তু কোনওটিই করোনার টিকা হিসেবে পরীক্ষায় পাশ করতে পারেনি। তাই অত্যন্ত সতর্কতার সাথে সমস্ত প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হচ্ছে ।

Follow Me:

Related Posts