রাজ্য

পণের দাবি এবং সন্তান না হওয়ায় নির্যাতন ! তরুণী বধূকে পুড়িয়ে মারল স্বামী , শ্বশুর এবং শাশুড়ি

Bangla 24×7 Desk : পণের দাবি এবং সন্তান না হওয়ায় নির্যাতন ! তরুণী বধূকে পুড়িয়ে মারল স্বামী , শ্বশুর এবং শাশুড়ি । মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে বসিরহাট মহকুমার হাসনাবাদ থানার রামেশ্বরপুর গ্রামে। নিহত তরুণীর স্বামী , শ্বশুর এবং শাশুড়িকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ । আগামীকাল তাঁদের বসিরহাট মহকুমা আদালতে তোলা হবে । এমনটাই জানা গেছে ।

সূত্রের খবর , বছর তিনেক আগে বসিরহাটের সাকচুড়া দাস পাড়ার বাসিন্দা রিয়া দাসের সঙ্গে হাসনাবাদ রামেশ্বরপুর গ্রামের দেবদাসের ভালবাসার সম্পর্ক তৈরি হয় । কিন্তু মেয়ের এই সম্পর্ক একেবারেই মেনে নিতে পারেননি রিয়ার বাবা ও মা । কিন্তু শেষমেশ বিয়ে হয় ।

কয়েক মাস আগে রিয়ার মাথায় হাতুড়ির বাড়ি মারারও অভিযোগ ওঠে শ্বশুর , শাশুড়ি ও স্বামীর বিরুদ্ধে। এসবের পাশাপাশি রিয়ার সন্তান না হওয়ার জন্য অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ চলত । রিয়ার ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাত তার স্বামী দেবদাস। পণের দাবিতে বারবার চাপ দিত রিয়াকে। এমনকি বাপের বাড়ি আসতে পর্যন্ত দিত না । দিনের পর দিন অত্যাছারের মাত্রা বেড়ে যেত ।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয় গ্রামবাসীরা উদ্ধার করে প্রথমে বসিরহাট জেলা হাসপাতাল নিয়ে যায়।  তারপর অবস্থার অবনতি হলে কলকাতার আরজিকর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় । কিন্তু আজ দুপুরেঐ গৃহবধূর মৃত্যু হয়।

মৃত তরুণী মা সুমিত্রা দাস বলেন , ” গতকাল সন্ধ্যেবেলায় রিয়া বাপের বাড়িতে আসার জন্য তার স্বামীকে বললে তারা রাজি হয়নি। সেই সঙ্গে আবারও সন্তান না হওয়ার দোহাই দিয়ে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ চলে। সহ্য করতে না পেরে রিয়া প্রতিবাদ করলে তার স্বামী ও শ্বশুর ও শাশুড়ি রিয়ার গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে জীবন্ত পুড়িয়ে মারে ” ।

হাসনাবাদ থানার তরফে মৃত বধূর দেহ গ্রামে আনা হলে রিয়ার শ্বশুর ও শাশুড়ি পালানোর চেষ্টা করে । যদিও সেই চেষ্টা ব্যর্থ হয় । রিয়ার শ্বশুর ও শাশুড়িকে পুলিশের হাতে তুলে দেয় রিয়ার পরিবার ।

Follow Me:

Related Posts