রাজ্য

অপরাধের আঁচ বাড়ছে প্রাচীন শহর বর্ধমানে , পুলিশের ভূমিকায় ক্ষোভ প্রকাশ স্থানীয় বাসিন্দাদের

Bangla 24×7 Desk : করোনা আবহে অপরাধের আঁচ বাড়ছে প্রাচীন শহর বর্ধমানে । পুলিশের ভূমিকায় ক্ষোভ প্রকাশ স্থানীয় বাসিন্দাদের । গত এক বছরে জেলা ছাড়াও বর্ধমান শহরে বেড়েই চলেছে অপরাধের প্রবনতা । যার ফলে বিরক্ত এলাকাবাসী ।

এই প্রসঙ্গে জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখার্জী জানান , ” অপরাধ হলেও পুলিশ তদন্তের ভিত্তিতে অপরাধীদের ধরছে । প্রয়োজনে সিআইডির সাহায্য নেওয়া হচ্ছে ” । স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন , ” গত বছর থেকে লাগাতার অপরাধের সংখ্যা বেড়ে চলেছে । গত বছর আগস্ট মাসে শরের বিভিন্ন প্রান্তে অপরাধের ঘটনা ঘটে ।

গত মাসে বর্ধমান শহরের লক্ষ্মীপুর মাঠের বাদশাহী রোড এলাকায় শাসক দলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় এলাকা । এর ফলে গৌতম দাস নামে এক যুবকের মৃত‍্যু হয়। রাতে তৃণমূল নেতা বিকাশ মণ্ডলের বাড়িতে ঢুকে বিকাশ মণ্ডলকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি ঘরের ফ্রিজ , আলমারি, মোটরবাইক ভাঙচুর করা হয়।

জানা গেছে কার্জনগেটের কাছে এবং বর্ধমান থানা থেকে ঢিল ছোড়া দূরত্বে দুষ্কৃতীরা জিটি রোডের ঢলদিঘির কাছে একটি বিরিয়ানির দোকানের মালিকের মোবাইলে ফোন করে দশ লক্ষ টাকা দাবি করে । এরপর রাত ১১টা নাগাদ দোকান বন্ধ করার সময় রাস্তা থেকে বোমা ছোঁড়া হয় দোকান লক্ষ্য করে। বোমার আঘাতে জখম হন দোকানের ৬ জন কর্মী। যার ফলে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন সবাই ।

এর পাশাপাশি পথ দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় বাজেপ্রতাপপুর। বর্ধমান-কাটোয়া রোডের বাজেপ্রতাপপুরে ডাম্পারের ধাক্কায় এক সাইকেল আরোহীর মৃত্যু হয়। দুর্ঘটনার পরেই স্থানীয় বাসিন্দারা মৃতদেহ রাস্তায় ফেলে পথ অবরোধ করেন। ঘটনাস্থলে পুলিশ আসলে পুলিশের সাথে স্থানীয় বাসিন্দাদের গণ্ডগোল হয় । এর মধ্যে আবার একজন পুলিশ কর্মীর রিভলবার ছিনতাই হয়ে যায় । সেই কিনারা এখনও হয়নি ।

বর্ধমান থানা থেকে একেবারে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে গোল্ড লোন সংস্থার অফিসে হানা দেয় দুষ্কৃতীরা। বাধা দিতে গিয়ে এক ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হন। সংস্থার কর্মীদের মারধর করার পাশাপাশি ৩০ ভরি সোনা লুঠ করে চম্পট দেয় দুষ্কৃতীরা। জনবহুল জায়গায় ডাকাতি ও গুলি চালানোর ঘটনায় রীতিমত বাসিন্দারা আতঙ্কিত ।

Follow Me:

Related Posts