রাজ্য

সুন্দরবনের আমফান পরবর্তী পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে রাজ্যে কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক দল

Bangla 24×7 Desk : গত ২০ শে মে ঘূর্ণিঝড় আমফানের তাণ্ডবে কার্যত ছিন্নভিন্ন হয়ে গিয়েছিল দক্ষিণবঙ্গ । কলকাতা সহ উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ এলাকা কার্যত ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছিল । বিদ্যুৎ বিছিন্ন হওয়া থেকে রাস্তায় উপর গাছ পড়ে যাওয়ার মতো ঘটনা ঘটেছিল । তার দাপটে অজস্র বাড়ি ভেঙে যাওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন জেলায় ৯৯ জনের মৃত্যু হয়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন , রাজ্যে এক লক্ষ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। আমফান পরবর্তী পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার জন্য দুর্গত এলাকা পরিদর্শনের পাশাপাশি আমফানের ক্ষত মোকাবিলায় রাজকে এক হাজার কোটি টাকার আর্থিক সাহায্যের কোথাও ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ।

ষোল দিনের মাথায় আমফান পরবর্তী পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের যুগ্ম সচিব অনুজ শর্মার নেতৃত্বে ৭ সদস্যের আন্তঃমন্ত্রী কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল রাজ্যে পা রেখেছেন । দুটি দল সূচি মেনে উত্তর ২৪ পরগনার সন্দেশখালি আর দক্ষিণ ২৪ পরগনার পাথরপ্রতিমা ব্লক পরিদর্শন করেন। শুক্রবার সকালে চারটি দলে ভাগ হয়ে তাঁরা উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার বিভিন্ন দুর্গত এলাকা পরিদর্শন করার উদ্দেশ্যে রওনা দেন । দক্ষিণ ২৪ পরগণার জেলাশাসক পি উলগানাথন সহ একটি প্রতিনিধি দল হেলিকপ্টারে করে সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ পাথর প্রতিমার কলেজ মাঠে পৌঁছান । পাথর প্রতিমা কলেজে বৈঠকে করোনা পরিস্থিতির কথাও জানতে চান প্রতিনিধি দলের সদস্যরা । সেখানে জানানো হয় ডায়মন্ড হারবার স্বাস্থ্য জেলায় স্বাস্থ্য জেলায় ১০ জন পরিযায়ী শ্রমিক করোনা আক্রান্ত । এই বৈঠকে পি উলগানাথন সহ উপস্থিত ছিলেন অনুজ শর্মা , এস সি মিনা ও সিদ্ধার্থ মিত্র।

এরপর পাথর প্রতিমা কলেজে জেলাশাসক পি উলগানাথনের সঙ্গে বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা প্রায় আধ ঘণ্টা ধরে চলা ঐ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কাকদ্বীপ মহকুমার মহকুমা শাসক শৌভিক চ্যাটার্জি ও সেচ দপ্তর সহ একাধিক দপ্তরের আধিকারিকরা। সেখান থেকে পাথরপ্রতিমা ব্লকের জি প্লটের গোবর্ধনপুর এবং ব্রজবল্লভপুর এলাকা পরিদর্শন করেন তাঁরা । এর পাশাপাশি গোবিন্দপুর ও উত্তর গোপালনগর সহ বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন । কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদের হাতের কাছে পেয়ে প্লাবিত জমিতে নোনা জলে পুনরায় চাষবাস করার জন্য সাহায্য চেয়েছেন বাসিন্দারা । পাশাপাশি কংক্রিটের বাঁধ তৈরির দাবি জানান তাঁরা ।

দিল্লীর উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়ার আগে দুর্গত এলাকা সংক্রান্ত সকল পরিস্থিতি নিয়ে নবান্নে একটি পর্যালোচনা করবেন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল । তারপর দিল্লী ফিরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রককে সমস্ত বিষয় নিয়ে অবগত করবেন এই প্রতিনিধি দলের সদস্যরা ।

Follow Me:

Related Posts