মহানগর রাজ্য

গণ পরিবহণ নিয়ে বড়সড় সিদ্ধান্ত গ্রহণ , ৭০ % কর্মী হাজিরা নিয়ে আগামী ৮ ই জুন থেকে খুলছে সরকারি দপ্তর : মুখ্যমন্ত্রী

Bangla 24×7 Desk : করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সরগরম রাজ্য l বেড়েই চলেছে আক্রান্তের সংখ্যা l সংক্রমণ ঠেকাতে ৩১ শে মে পর্যন্ত দেশ জুড়ে ঘোষিত হয়েছে চতুর্থ পর্যায়ের লক ডাউন l সেই মতো রাজ্যেও লক ডাউন চলছে l কিন্তু এই লক ডাউন পরিস্থিতিতে জরুরী ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

মুখ্যমন্ত্রী জানান , আগামী ১ লা জুন থেকে সব ধর্মীয় স্থান খুলছে । কিন্তু সেখানে একসঙ্গে ১০ জনের বেশি প্রবেশ করা যাবে না। মন্দিরে ঢুকতে গেলে স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করতে হবে। বড় কোনও উৎসব এখন করা যাবে না। আগামী ১ লা জুন থেকে সকাল ১০টা থেকে মন্দির খোলা যাবে।

এছাড়া তিনি বলেন আগামী ৮ ই জুন থেকে ১০০ % কর্মী হাজিরা নিয়ে চলবে সরকারি – বেসরকারি অফিস । কিন্তু পরে নিজেই জানান , বর্তমান পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে ৭০ % হাজিরা নিয়ে সরকারি দপ্তর গুলি কাজ শুরু করবে । যদিও বেসরকারি সংস্থা গুলির কর্মীদের কাজে যোগদানের বিষয়টির সিদ্ধান্ত গ্রহণের ব্যাপারটি সংস্থার হাতেই ছেড়েছেন মুখ্যমন্ত্রী । এক্ষেত্রে তিনি ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ এর ব্যাপারে মত দিয়েছেন ।

গণ পরিবহণ ব্যবস্থা সম্পর্কেও বড় ঘোষণা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানালেন , বাসে ২০ জনের বেশি নেওয়া যাবে না। অনেক লোকসান হচ্ছে । কিন্তু কিছু করার নেই । বাসে যা আসন আছে , তাতেই যাবেন । কেউ দাঁড়িয়ে যাবেন না। বাসে ওঠার সময় কন্ডাক্টরের গায়ে কেউ হাত দেবেন না ।

জুন মাস বন্ধ থাকবে স্কুল গুলি। কোয়ারেন্টিন সেন্টার নিয়ে চিন্তা করবেন না , যাতে করোনা ভাইরাস না ছড়ায় তার জন্যই তৈরি কোয়ারেন্টিন সেন্টার। বাইরে থেকে গ্রামে আসলে গ্রামের স্কুলেই কোয়ারেন্টিন থাকতে হবে । কোয়ারেন্টিনে ৭ দিন রাখার পরে করোনা পরীক্ষা হবে । ১০ দিন পরে করোনার হদিশ না পাওয়া গেলে বাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।

১০০ দিনের কাজ করতে গিয়ে সবাই এক জায়গায় জড়ো হবেন না। হটস্পট থেকে ট্রেনে কেন গাদাগাদি করে আনা হচ্ছে ? সামাজিক দূরত্ব মানছে না রেল , বাড়তি ট্রেন নয় কেন ? এই সব বিষয় প্রশ্ন তোলেন মুখ্যমন্ত্রী । অনেকে খেতে পাচ্ছেন না , মারাও যাচ্ছেন। এখন তো শ্রমিক এক্সপ্রেসের নামে করোনা এক্সপ্রেস হয়ে গেছে। এছাড়া তিনি বলেন , ১০০ শতাংশ কর্মী নিয়ে চলবে চা – জুটমিল গুলি।

Follow Me:

Related Posts