দেশ

ধর্মঘটের জের, মার্চে টানা ৫ দিন বন্ধ থাকবে ব্যাংক

bangla24x7: ফেব্রুয়ারির গোড়ার দিকে পরপর তিনদিন ব্যাংক বন্ধ থাকায় ভোগান্তির শিকার হয়েছিল সাধারণ মানুষ। কিন্তু মার্চ মাসে আরও নাকাল হতে হবে আমআদমিকে। কারণ পরের মাসে পরপর ৫ দিন বন্ধ থাকবে ব্যাংক। শুধু ব্যাংক নয়, ওই কয়েকদিন বিপর্যস্ত হতে পারে ATM পরিষেবাও।

এবছরের শুরু থেকেই ব্যাংক ধর্মঘটের জেরে জেরবার আমআদমি। বেতন বৃদ্ধির দাবিতে কাজ বন্ধ রেখে ধর্মঘট করছেন ব্যাংক কর্মীরা। এর আগেও বেতন কাঠামোর পুনর্বিন্যাস এবং সংযুক্তিকরণের প্রতিবাদে ব্যাংক ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে ব্যাংক অফিশার্স অ্যাসোসিয়েশন। সংযুক্তিকরণের প্রতিবাদ, বেতন কাঠামোর পুনর্বিন্যাস, সপ্তাহে পাঁচদিন কাজ-সহ একাধিক দাবিতে ৩১ জানুয়ারি শুক্রবার এবং ১ ফেব্রুয়ারি শনিবার ব্যাংক ধর্মঘট করেন ব্যাংক অফিশার্স অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা। পরেরদিন ২ ফেব্রুয়ারি রবিবার হওয়ায় পরপর তিনদিন মেলেনি ব্যাংকিং পরিষেবা। এটিএমগুলিও ধর্মঘটের আওতাভুক্ত বলেই দাবি ব্যাংক অফিশার্স অ্যাসোসিয়েশনের। তাই বন্ধ ছিল সেগুলিও। ব্যাংক অফিশার্স অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা তখনই জানিয়েছিলেন, দাবিপূরণ না হলেও আগামী ১১ থেকে ১৩ মার্চ পর্যন্ত বিক্ষোভে শামিল হবেন তাঁরা।

সেই মতোই ১১ মার্চ থেকে বিক্ষোভে শামিল হতে চলেছে ব্যাংক অফিশার্স অ্যাসোসিয়েশন। তবে সমস্যা অন্য জায়গায়। ১১ মার্চ বুধবার। ফলে ধর্মঘট হলে ১৩ মার্চ শুক্রবার পর্যন্ত ব্যাংকিং পরিষেবা অচল হওয়ার আশঙ্কা। তার উপর রিজার্ভ ব্যাংকের নিয়ম অনুসারে, মাসের দ্বিতীয় ও চতুর্থ সপ্তাহের শনিবার ব্যাংক বন্ধ থাকে। ১৪ মার্চ পড়েছে শনিবার। আর ১৫ মার্চ রবিবার তো এমনিই ছুটির দিন। ফলে বুধবার থেকে টানা ৫ দিন ব্যাংক বন্ধ থাকার আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। তারপরেও দাবিপূরণ না হলে আগামী ১ এপ্রিলও ধর্মঘট করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে সেদিনও কোনও সমাধান সূত্র না মিটলে তারপর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ব্যাংক ধর্মঘটের হুঁশিয়ারি ব্যাংক অফিশার্স অ্যাসোসিয়েশনের।

Related Posts