রাজ্য

৩৬ ফুট লম্বা বিশালাকৃতি তিমি ভেসে উঠলো মন্দারমণিতে

Bangla 24×7 Desk : হঠাৎ সাতসকাল বেলা দুরের দিকে কিছু যেন একটা পরে আছে । স্থানীয়রা একটু কাছে যেতেই তাদের চক্ষু তো চড়কগাছ । দেখতে পাওয়া গেল মন্দারমণিতে বিশালাকার সামুদ্রিক প্রাণীর দেহ হঠাৎ করেই ভেসে উঠলো । হইচই পড়ে যায় চারিদিকে সমুদ্রতটে পড়ে থাকা প্রাণীটিকে দেখবার জন্য ।

মৎস্যজীবীরা মনে করছেন, প্রাথমিকভাবে ৩৬ ফুট লম্বা এই বিশালাকার প্রাণীটি নীল তিমি প্রজাতির প্রাণী । বনদপ্তরের আধিকারিকরা খবর পাওয়ামাত্রই সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পৌঁছান । এই বিশালাকার প্রাণীটি আদৌ কি তিমি ? সেটা বলাটা এখনো পর্যন্ত ঠিক সম্ভপর হচ্ছেনা ।

লকডাউনের জেরে সমস্ত পর্যটন কেন্দ্রগুলি এমনিতেই বন্ধ রয়েছে । এমনকি অন্যান্য পর্যটন কেন্দ্রের মতো দিঘা মন্দারমনিও বন্ধ । রীতিমতো আনলক ওয়ানেরর কারণে শুরু হয়েছে পর্যটকের আনাগোনা । তবে তা অতি নগণ্যই । এই পরিস্থিতিতেই সোমবার সকালে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার সৈকত শহর মন্দারমণিতে সমুদ্রের পাড়ে এই বিশালাকার সামুদ্রিক প্রাণীরটির দেহ দেখতে পায় মৎস্যজীবীরা । মৎস্যজীবীরা মনে করেছেন সমুদ্র তটে ভেসে আসা ওই প্রাণীটি হোয়েল (নীল তিমি) প্রজাতির । তা দেখতে সমুদ্রতটে ভিড় জমান অসংখ্য মানুষ ।

বহুবার এর আগেও দিঘা, মন্দারমণিতে তিমি ভেসে আসতে দেখা গেছে । তবে সেগুলির আকার ছিল ছোটাকৃতি। ২০১২ সালের ১০ ডিসেম্বর দিঘা মোহনা থেকে প্রায় ৪০ নটিক্যাল মাইল সমুদ্রের গভীর থেকে মৃত অবস্থায় একটি তিমি উদ্ধার করা হয়। যা ৪৫ ফুট লম্বা ও ১০ ফুট চওড়া ছিল। অন্তত কমপক্ষে ১৮ টন তিমিটির ওজন ছিল । তিমিটিকে মৎস্যজীবীরা উদ্ধার করেছিলেন । পরে সেই তিমিটিকে টেনে দিঘা মোহনায় এনে তোলা হয়। এই তিমিটি কিন্তু সাধারণভাবে প্রশান্ত মহাসাগরের গভীরে বসবাস করে। তিমিটি সম্ভবত বঙ্গোপসাগরে চলে আসে খাবার খুঁজতে খুঁজতে । তারপরে সেটি মৎস্যজীবীদের জালে আটকা পরে যায় । এখন দিঘার মেরিন অ্যাকোয়ারিয়ামে রাখা হয়েছে তিমির কঙ্কালটি ।

Follow Me:

Related Posts