দেশ

আহত শিশুকে বাঁশের তৈরি স্ট্রেচারে শুইয়ে কাঁধে ১৩০০ কিমি হেঁটে বাড়ি ফিরল শ্রমিক

Bangla24x7 Desk: পরিযায়ী শ্রমিক এই শব্দের সাথে আমরা সকলেই এখন অনেকেই পিরিচিত। আর এই পরিস্থিতে একটাই দুর্দশার চিত্র আমাদের সকলের সামনে উঠে আসছে। কখনো সাইকেলে চেপে বাড়ি ফেরার পথে মৃত্যু আবার কখনো পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু। হয়ত দেখা গেছে সি ছবি যেখানে মা সুটকেশে চেপে নিএ যাচ্ছে ঘুমন্ত শিশু কে। আর এমনই ঠিক একটা ছবি দেখা গেল লুধিয়ানা থেকে মধ্যপ্রদেশের সিঙ্গরৌলি পর্যন্ত যাওয়ার পথে।

 চরম এই পরিস্থিতিতে ভিন রাজ্যে আটকে আছে। কেউ হেঁটে বাড়ি ফিরছে কেউ বা বা মাইলের পর মাইলের সাইকেল চালিয়ে। তবে কোনভাবেই বাড়ি ফিরতেই হবে এটাই মুল লক্ষ্য। আর এই সময় এক পরিবারের দেখা মেলে উত্তরপ্রদেশের সেরিংয়ের (Uttar Pradesh) রাস্তায়। পরিবারের ১৭ জন সড়ক পথেই পায়ে হেঁটে বাড়ি ফেরার উদ্দেশে রওনা হয়। কিন্তু কথা হল পরিবারের ছোট ছেলেটির ঘাড় ভেঙে গেছে, যন্ত্রণার কাতরাচ্ছে সে। কিন্তু কোনকিছুই না ভেবে কোনভাবেই হাঁটা থামায় নি। গুরুতর আহত শিশুটিকে বহনের জন্যে বাঁশ ও কাপড় দিয়ে হাতে তৈরি একটি স্ট্রেচার বানিয়েছেন তাঁরা। স্ট্রেচারে শুইয়ে কাঁধে করেই পথ হেঁটেছেন তাঁরা। বাড়ি যাওয়াই একমাত্র লক্ষ্য, আর এর জন্যে পেরোতে হবে প্রায় ১৩০০ কিলোমিটার পথ।

তবে এরকম ঘটনা প্রায়শই চোখের সামনে উঠে আসছে প্রায়শই। পরিযায়ী শ্রমিকেরা আজকের দিনে রাজ্য রাজনীতির কাছে বড়ো ইস্যু হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে ঘরে ফিরতে গিয়ে বহু পরিযায়ী শ্রমিক মারও গেছেন ইতিমধ্যেই। তবে যে এই অসহায় গল্প টি একটু করুন শ্রমিক পরিবারের। যারা কিনা চরম দুর্দশার মধ্যে থেকে এই বড়ো সিদ্ধান্ত নিয়ে রাস্তায় বেরিয়ে পড়েছে বাড়ি যাওয়ার উদ্দেশে।

পরিবারেরই এক সদস্য জানান,তাঁদের এই চরম পরিস্থিতে আজকে তাঁরা খুবই অসহায়। লুধিয়ানা থেকে প্রায় ১৫ দিন টানা হেঁটেছে। ছোট্ট বাচ্চাটির ঘাড় ভেঙে যাওয়ায় কাঁধে তুলে নিয়েও পথ পেরিয়েছেন, থেমে যাননি তবুও। পেটে প্রায় কিছুই পড়েনি, তবু হেঁটেছেন, হেঁটেই গেছেন। তবে শেষপর্যন্ত পুলিশ ট্রাক ব্যবস্থা করে দেওয়ার পর আশায় বাড়ি ফিরছেন ওই শ্রমিকদের দল।

Follow Me:

Related Posts